তেল ব্যবসায়ীরা এক রাতেই কোটিপতি, অসহায়ত্ব প্রকাশ সাধারণ মানুষের

এক রাতের ব্যাবধানেই দেশের বাজারে সব ধরনের জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি করেছে করকার। হঠাৎ করে এই জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির কারণে তীব্র ক্ষোভ ও অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিভিন্ন শ্রেণী ও পেশার মানুষ। ঢাকাসহ বিভিন্ন জেলায় পরিবহন সংকট দেখা দিয়েছে। বিশেষ করে রাজধানীতে চরম বিপাকে পড়েছেন যাত্রীরা। কিছু পরিবহন পাওয়া গেলেও দ্বিগুণ ভাড়া নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে।

আজ শনিবার দুপুরে রাজধানীর মোহাম্মদপুর এলাকার শাকিল নামের এক বাইকার বলেন, বিশ্ববাজারে তেলের দাম কমেছে কিন্তু আমাদের দেশে ঘটেছে ঠিক উল্টো । সেখানে আরো কমার কথা সেখানে আরো এক রাতের ব্যাবধানেই তা ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি করেছে সরকার। এর ফলে জ্বালানি তেলের দামের কারণে এখন সবকিছুরই দাম বেড়ে যাবে। একটা গণতান্ত্রিক দেশে এভাবে হুট করে বেড়ে যাবে এটা মেনে নেয়া যায় না। এসময় তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে তিনি বলেন, আপনি আমার প্রতিক্রিয়া জানতে চাইছেন। কি প্রতিক্রিয়া দেব বলুন ? এভাবে চললে সাধারণ মানুষকে কিছুদিন না খেয়ে থাকতে হবে।

এছাড়া রাজধানীর মোহাম্মদপুর, বাংলামোটর ও শাহবাগ এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, বাসের জন্য অনেক মানুষ দাঁড়িয়ে আছেন। মাঝে মধ্যে দু-একটি বাস এলেও সেগুলো যাত্রীতে ঠাসা। দু-একজন নেমে গেলে অপেক্ষারতরা বাসে ওঠার জন্য হুমড়ি খেয়ে পড়ছেন। দু-একজন বাসে ঠাঁই পেলেও বাকিরা হতাশ হয়ে পরের বাসের জন্য অপেক্ষা করছেন। বাংলামোটর মোড়ে দেখা গেছে, যাত্রীতে ঠাসা শিকড় পরিবহনের একটি বাস আসে। গেটেও কয়েকজন দাঁড়ানো।
এরমধ্যেই বাসে ওঠার চেষ্টা করল চালকের সহকারী বলেন, ১৫ টাকার কম হলে কেউ বাসে উইঠেন না। ওই বাস থেকে নামেন রাইতুল। তিনি বলেন, দীর্ঘ সময় অপেক্ষার পর কোনোরকম বাসে উঠেছিলাম। ১০ টাকার ভাড়া ১৫ টাকা নিয়েছে। সবকিছুর দাম দিনে দিনে বাড়বে এটা স্বাভাবিক। কিন্তু রাতারাতি জ্বালানি তেলের দাম এভাবে বেড়ে যাওয়ায় তেল ব্যবসায়ীরা তো এক রাতেই কোটিপতি হয়ে গেল। এছাড়া নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আরেক বাইকার বলেন, একটা গণতান্ত্রিক দেশে এভাবে সবকিছু হয়ে যাচ্ছে। আমরা মেনে নিচ্ছি, মেনে নিতে বাধ্য হচ্ছি। এভাবে দেশ চলতে পারে না।

এর আগে, শুক্রবার রাত ১২টার পর জ্বালানি তেলের নতুন দাম কার্যকর করেছে সরকার। ডিজেল ও কেরোসিনের দাম লিটারে ৩৪ টাকা বাড়িয়ে ১১৪ টাকা, পেট্রোলের দাম ৪৪ টাকা বাড়িয়ে ১৩০ টাকা এবং অকটেনের দাম ৪৬ টাকা বাড়িয়ে ১৩৫ টাকা করা হয়েছে। এতদিন কেরোসিন ও ডিজেল প্রতি লিটার ৮০ টাকা, অকটেন ৮৯ টাকা প্রতি লিটার আর পেট্রোল ৮৬ টাকা প্রতি লিটারে বিক্রি হচ্ছিল। নতুন দাম বৃদ্ধিতে ডিজেল ও কেরোসিনের দাম ৪২.৫ শতাংশ, পেট্রোলের ৫১.১৬ শতাংশ ও অকটেনের দাম বেড়েছে ৫১.৬৮ শতাংশ বেড়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.