নার্সিং পড়াশোনা করে বন্ধুরা আজ সরকারি চাকুরীজীবি- ঢাবি শিক্ষার্থীর মন্তব্য

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মাস্টার্স পড়ুয়া একজন ছাত্র আজ BSMMU এর জরুরী বিভাগে সেবা নিতে এসছিলেন। একপর্যায়ে তার সাথে কথায় কথায় পরিচিত হলাম ।তিনি বললেন আপনাকে দেখে বড়ই আফসোস হচ্ছে। আমি মনে মনে ভাবলাম সে বোধহয় নার্স বলে আমাকে অন্য চোখে দেখছে।পড়ে বললাম কেন? ওনি বললেন ঢাবি তে ভর্তি হবার সময় আমার অনেক বন্ধুরা নার্সিং পড়তে গেল। আমাকেও বলল পড়তে কিন্তু আমি বিষয়টি ভারি অসম্মানের মনে করেছিলাম ।ভেবেছিলাম মনে মনে অনেক বাজে কিছু ।আজ তারা সবাই সরকারি কর্মকর্তা। আর আমি একের পর এক বিসিএস দিতে আছি। তখন আমি বললাম ভাই তাও এখোনো নার্স কে কিছুই মনে করে না।এখোনো ধারনা পরিবর্তন হয় নি। জবাবে তিনি বললেন শিক্ষিত সমাজ আপনাদের অবস্হান বেশ ভালো করে জানে।বর্তমানে অনেক চাকরি প্রত্যাশিরা এক সময় নার্সিং পরার সুযোগ পেয়েও পড়ে নি তারা এখন আফসোস করে।তবে আপনাদের উপস্থাপন আপনাদেরই সুন্দর করতে হবে।তিনি আরো বললেন আমার টিওশনির ছাত্রীদের আমি সবসময় বলি নার্সিং পড়তে।আমি তাকে কিছু মেসেজ দিয়ে দিলাম যাতে তার ধারনা আরো পরিষ্কার হয়।কিভাবে নার্স হতে হয়। কাউন্সিল রেজিষ্ট্রেশন কারিগরি এসব সম্পর্কে।

তবে মূল কথা হল আমাদের নিজেদের উপস্থাপন করার ধরন আমাদের পরিবর্তন করতে হবে।আরো বেশি আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে।ছোট ছোট বিষয়কে আরো গুরুত্ব দিয়ে কাজ করতে হবে।কাজের চাপ,পেশেন্টের চাপ,উপর মহলের চাপ সবকিছুর উর্ধে আমারে মাথা ঠান্ডা রেখে কাজ করা লাগবে।নার্সিং এর এই প্রজন্ম যদি এসব ব্যাপারে দায়িত্বশীল না হয় তাহলে এই দায় এরাতে পারবে না কেউ।পরবর্তী প্রজন্ম কে সুন্দর একটা পেশা উপহার দিতে হবে।

 

©মাহফুজুর রহমান অনিক

নার্সিং কর্মকর্তা(বিএসএমএমইউ)

Leave a Reply

Your email address will not be published.