পঙ্গু হাসপাতালে ঈদের ৩ দিনে দেড় হাজার রোগী

পবিত্র ঈদুল আজহায় সড়ক দুর্ঘটনায় মাটি হয়ে গেছে অনেকের ঈদ আনন্দ। সোমবার রাতে (১১ জুলাই) জাতীয় অর্থোপেডিক হাসপাতাল ও পুনর্বাসন প্রতিষ্ঠানের (পঙ্গু হাসপাতাল) জরুরি বিভাগে গিয়ে দেখা যায়, রোগীর সেবা দিতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছেন স্বাস্থ্যকর্মীরা।

রোগী ও তাদের স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বেশিরভাগ রোগী এসেছেন ঢাকার বাইরে থেকে। কেউ ঈদে বাড়ি ফিরতে গিয়ে সড়ক দুর্ঘটনায় হারিয়েছেন পা, কেউ বা হাত। আবার কেউ কোরবানির পশুর হাটে ও কোরবানি দিতে গিয়ে নানাভাবে আহত হয়েছেন।
হাসপাতালের হেল্প ডেস্কে কর্মরত প্রান্ত দাস জানান, সাধারণত দৈনিক ১০০ থেকে সর্বোচ্চ ১৫০ জন রোগী ভর্তি হয়। অথচ ঈদের তিনদিনে সড়ক দুর্ঘটনায় হাত-পা ভেঙে ভর্তি হয়েছেন ৩৩০ জন রোগী। এছাড়া জরুরি বিভাগে চিকিৎসা নিয়েছেন ১২ শতাধিক মানুষ। অর্থাৎ গড়ে প্রতিদিন ৫ শতাধিক মানুষ নানাভাবে আহত হয়ে চিকিৎসা নিয়েছেন।

হাসপাতালটির পরিচালক আব্দুল গণি মোল্লা বলেন, গতবারের তুলনায় এবারের ঈদে মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার সংখ্যা কম ছিল। সব মিলিয়ে ১০ থেকে ২০ শতাংশের বেশি না। তবে অন্যান্য যানবাহন ও কোরবানির পশুর আঘাতে আহতদের সংখ্যা বেশি। তবে হাসপাতাল ঘুরে দেখা যায়, ভর্তি রোগীদের বেশিরভাগ মোটরসাইকেল দুর্ঘটনার।

হাসপাতালে নারাণগঞ্জের রোগী রাকিব (৩৬) জানান, ঈদের দিন বাসার সামনে রাস্তা পার হওয়ার সময় মোটরসাইকেলের ধাক্কায় আহত হয়ে রাতে পঙ্গু হাসপাতালে এসেছেন। তার বাম হাত ভেঙে গেছে। এমনভাবে অনেকেই আহত হয়েছে। হাত, পা ভেঙে গেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.