দারিদ্র্য ও মেধাবী শিক্ষার্থীর দ্বায়িত্ব নিলেন অধ্যক্ষ শিরিনা আক্তার

দিনাজপুরের দারিদ্র্য ঘরের সন্তান শারমিন আক্তার নার্সিং ভর্তি পরীক্ষা ২০২১-২২ সেশনের নার্সিং ভর্তি পরীক্ষায় জাতীয় মেধায় ৬০ তম হয়ে ঢাকা নার্সিং কলেজ এ ভর্তির জন্যে মনোনীত হয়।

কিন্তু ভর্তির সময় বাধা হয়ে দারায় দারিদ্রতা, আর্থিক অস্বচ্ছলতায় অনিশ্চিত হয়ে পরে নার্সিং ভর্তি।

অবশেষে ভোরের আলোয় আলোকিত হয় শারমিনের ভবিষ্যত।

বামে শারমিনের বাবা,এরপরে শারমিন ও অধ্যক্ষ স্যার শিরিনা আক্তার

ঢাকা নার্সিং কলেজের শ্রদ্ধেয় অধ্যক্ষ স্যার শিরিনা আক্তার নিজ অর্থায়ন এ তার ভর্তির যাবতীয় কার্যক্রম শেষ করেন।এবং ভবিষ্যতে নার্সিং পড়াশোনার যাবতীয় খরচ বহনের দ্বায়িত্ব ও নিজ কাধে তুলে নেন স্যার শিরিন আক্তার।

সার্বিক সহযোগিতা করে স্টুডেন্ট ওয়েলফেয়ার অর্গানাইজেশনের ঢাকা নার্সিং কলেজ।

Leave a Reply

Your email address will not be published.