সাত রাস্তার মোড় জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজের নার্সদের কাছে আতঙ্কের নাম

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে ফুলতলা হয়ে সাতমাথা পর্যন্ত সড়কে গত এক মাসে অন্তত অর্ধশত ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে।

হাসপাতালেরই অন্তত ২০ জন কর্মী ও ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি ছিনতাইয়ের শিকার।

বিভিন্ন সময় ছিনতাইয়ের ঘটনায় একজন নিহত ও বেশ কয়েকজন আহত হয়েছেন।

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে অসুস্থ ভাইকে দেখে দিবাগত রাত দেড়টায় স্বামীর সঙ্গে বাসায় ফিরছিলেন গোলাপজান (৩৫)। পথে কৈগাড়ি মৎস্য কার্যালয়ের সামনে তাঁদের বহনকারী অটোরিকশার গতিরোধ করে পাঁচজনের ছিনতাইকারী দল। ধারালো অস্ত্রের মুখে কেড়ে নেয় টাকা, দুটি মুঠোফোন ও কানের দুল। ছুরিকাঘাতে আহত হন গোলাপজানের স্বামী গোলাম কিবরিয়া।

গোলাপজান হাসপাতাল থেকে শহরের ঠনঠনিয়া এলাকায় ভাড়া বাসায় ফিরছিলেন শজিমেক-ফুলতলা-সাতমাথা সড়ক ধরে। তিনি মেডিকেল কলেজ হাসপাতালটির জ্যেষ্ঠ নার্স। হাসপাতালের নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী ও রোগীর স্বজনদের ভাষ্য, গত এক মাসে এই সড়কে অন্তত অর্ধশত ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। ফলে রাতে এই সড়ক দিয়ে চলাচল আতঙ্কের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।
তবে এই সড়কে ছিনতাইয়ের ঘটনার নির্দিষ্ট তথ্য নেই থানা-পুলিশের কাছে। পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে গোলাপজানের ঘটনার অভিযোগ পাওয়ার পর সিসিটিভি ফুটেজ দেখে ছিনতাইকারীদের শনাক্তের চেষ্টা চলছে

গোলাপজান ছিনতাইয়ের শিকার হন গত সোমবার রাতে। এরপর এই সড়কে ছিনতাইয়ের শিকার বেশ কয়েকজন ভুক্তভোগীর সঙ্গে কথা হয় প্রতিবেদকের। তাঁরা জানিয়েছেন, ছিনতাইকারীদের মূল লক্ষ্যে থাকেন হাসপাতালে আসা রোগীর স্বজন, নার্স ও স্বাস্থ্যকর্মীরা।

এর আগে শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের আরেক জ্যেষ্ঠ স্টাফ নার্স সৈয়দা তাসলিমা জাহান ছিনতাইয়ের শিকার হন। তিনি বলেন, দু-এক সপ্তাহ আগে রাত পৌনে আটটায় তিনি শহরতলির গণ্ডগ্রামের বাসা থেকে স্বামী সোলায়মান আলীর মোটরসাইকেলে করে হাসপাতালে যাচ্ছিলেন রাত্রিকালীন ডিউটিতে। ফুলতলা মোড় অতিক্রম করার পর পেছন থেকে মোটরসাইকেলে আসা দুজন ছিনতাইকারী ছোঁ মেরে তাঁর হাতব্যাগ কেড়ে নেয়। ব্যাগে টাকা, মুঠোফোন ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র ছিল।

ছিনতাইকারীরা হাতব্যাগ কেড়ে নেওয়ার সময় সজোরে ধাক্কা দিলে মোটরসাইকেল থেকে সড়কে ছিটকে পড়েন।

শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের একটি সূত্র জানিয়েছে, গত এক মাসে এই সড়কে হাসপাতালের অন্তত ২০ জন নার্স, স্বাস্থ্যকর্মী এবং বেসরকারি ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি ছিনতাইয়ের শিকার হয়েছেন।

এর আগে গত সপ্তাহে শহরতলির দ্বিতীয় বাইপাস সড়কে হেলেঞ্চাপাড়া এলাকায় হাটে সবজি বিক্রি করে বাড়ি ফেরার পথে ছিনতাইকারীদের ছুরিকাঘাতে খুন হন শাজাহানপুর উপজেলার নন্দগ্রামের কৃষক আজহার আলী (৬৪)। এ ঘটনায় শাজাহানপুর থানায় হত্যা মামলা হয়েছে।

শাজাহানপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল্লাহ আল মামুন বলেন, শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ থেকে ফুলতলা-সাতমাথা সড়কের কিছু অংশ শাজাহানপুর থানা-পুলিশের নিয়ন্ত্রণে। ছিনতাইয়ের অভিযোগ পাওয়ায় রাতে এই সড়কে পুলিশি টহল বাড়ানো হয়েছে।

©প্রথম আলো

Leave a Reply

Your email address will not be published.