ভর্তি যোগ্যতা বৃদ্ধির একযুগেও বাড়েনি ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সনদের মান,নার্সিং সোসাইটি অব বাংলাদেশের চিঠি

বৈষম্য মূলক শিক্ষা ব্যবস্থার পরিবর্তন ও ডিপ্লোমা ইন নার্সিং কে স্নাতক নার্সিং ডিগ্রির মান দিতে নার্সিং সোসাইটি অব বাংলাদেশের চিঠি

বাংলাদেশের নার্সিং শিক্ষাব্যবস্থা ও ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সনদের মান স্নাতক নার্সিং ডিগ্রি সমমান করতে স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরি কল্যাণ বিভাগ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যান মন্ত্রনালয়ের মাননীয় সচিব বরাবর চিঠি দিয়েছে নার্সিং সোসাইটি অব বাংলাদেশ।

 

চিঠির ভাষ্য ও বক্তব্য তুলে ধরা হলো

 

NURSING SOCIETY OF BANGLADESH
Safe Nursing-Save Community
তারিখঃ ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১ ইং
মাননীয় সচিব,
স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগ,
স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়,
বাংলাদেশ সচিবলায়, শাহবাগ, ঢাকা-১০০০।

বিষয়ঃ বৈষম্যমূলক শিক্ষা ব্যবস্থা বন্ধ পূর্বক উচ্চ মাধ্যমিক (HSC) পাশের পর (৩ বছর মেয়াদী) “ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারি ডিগ্রীর সদন হলে বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের অধীনে “স্নাতক” নার্সিং ডিগ্রীর সনদ প্রদান করার অনুরােধ প্রসঙ্গে।

জনাব,
যথাযথ সম্মান পূর্বক আপনার সদয় অবগতির জন্য জানাচ্ছি যে, বর্তমানে বাংলাদেশের সাধারণ ও কারিগরি শিক্ষা ব্যবস্থায় এস.এস.সি/ সমমান
(SSC) পাশের পর সকল প্রকার ডিপ্লোমা কোর্সে ভর্তি দেওয়া ও নেওয়া হয়ে থাকে। ফলে স্নাতক ডিগ্রির পূর্বে যে, সকল ডিপ্লোমা ডিগ্রী অর্জিত হয় ইহা এইচ.এস.সি (HSC) সমমানের মূল্যায়ন হয়। শুধুমাত্র নার্সিং পেশায় স্বার্থান্বেষী মহলের উদ্দেশ্যপ্রণােদিত কার্যক্রমের ফলে উচ্চ মাধ্যমিক (এইচ.এস.সি (HSC)/সমমান) পাশ করে ৩ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারী কোর্সে ভর্তি হতে বাধ্য করা হচ্ছে, এবং কোর্স শেষে আবারও নার্সিং কাউন্সিল কর্তৃক ডিপ্লোমা আকারে ক্ষমতা/ বৈধতা (Power / legitimacy) ছাড়াই
এইচ.এস.সি/সমমান এর একাডেমিক সনদ প্রদান করা হচ্ছে। ফলে ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারী শিক্ষর্থীদের মৌলিক অধিকার এবং জাতীয় শিক্ষানীতি লক্ষ্মন করে বৈষম্যমূলকভাবে বৈধতা ছাড়াই একই উচ্চ মাধ্যমিক মানের একাডেমিক সনদ প্রদান করা হচ্ছে।
পরবর্তিতে নতুন করে ০২ বছর হাসপাতালের অভিজ্ঞতা শেষ করে বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের অধীনে সহ ০২ বছর মেয়াদী বি.এস.সি নার্সিং (স্নাতক”) ডিগ্রি অর্জন করতে হয়। ফলে উদ্দেশ্যপ্রণােদিত ভাবে স্বার্থান্বেষী মহল তাদের জীবন থেকে অতি মূল্যবান ০৪ (চার) বছর সময় নষ্ট করে দিচ্ছে। উল্লেখ্য যে, উন্নত বিশ্বের ন্যায় বর্তমানে বাংলাদেশেও আর্ন্তজাতিক মানের শিক্ষা ব্যাবস্থার মত উচ্চ মাধ্যমিক (HSC)/ সমমানের পাশের পর একই মন্ত্রণালয় ও কাউন্সিলের অধিভুক্ত সরকারী ও বেসরকারী প্রায় ২৫০ (দুইশত পঞ্চাশ) প্রতিষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয় সমূহের অধীনে বি.এস.সি, স্নাতক সম্মান ডিগ্রী প্রদান করা হচ্ছে। এখানে অত্যন্ত স্পষ্ট যে, উচ্চ মাধ্যমিক/সমমানের (এইচ.এস.সি)পাশের পর একটি গ্রুপকে ০৪ বছর মেয়াদী বিএসসি নার্সিং ডিগ্রী অর্জনের সুযােগ দিলেও অন্য একটি গুপকে ০৩ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স
এন্ড মিডওয়াইফারী নামে উচ্চ মাধ্যমিক/সমমানের ডিগ্রী অর্জনের সুযােগের মধ্যে সীমাবদ্ধ রাখা হচ্ছে। ফলে পরবর্তিতে নতুন ভাবে ০৪ বছর সময় নষ্ট করে আবারও তাদেরকে বিএসসি নার্সিং ডিগ্রী অর্জন করতে হয়, ইহা অত্যন্ত বৈষম্যমূলক কর্মকান্ডের একটি উৎকৃষ্ট উদাহরন।
গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের সংবিধানের তৃতীয় ভাগ, মৌলিক অধিকার, ধাৱা ২৮ এর উপধারা (১),(২) ও (৩) ধর্ম, গােষ্ঠী, বর্ণ, নারী পুরুষভেদ ৰা জন্নস্থানের কারনে সকল নাগরিকের শিক্ষার ক্ষেত্রে সমান অধিকার লাভের সুযােগ থাকলেও বাংলাদেশের বর্তমান ০৩ বছর মেয়াদী ডিপ্লোমা
ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারী শিক্ষর্থীদেরকে তাদের মৌলিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। এছাড়া গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশের জাতীয় শিক্ষানীতির ১০ম অধ্যায় (শিক্ষা, সেবা ও স্বাস্থ্য শিক্ষা) কৌশল এর ধারা ০৬ অনুসারে নার্সিং কলেজে বি.এস.সি এবং এম.এস.সি কোর্স
চালু করার উদ্যোগ নেওয়া হবে। এই নীতি থাকার পরেও শিক্ষানীতি অবমাননা করে একটি স্বার্থন্বেষী মহল তাদের স্বার্থ রক্ষার্থে উদ্দেশ্যপ্রণােদিত একই উচ্চ মাধ্যমিক/সমমানের ডিপ্লোমা ইন নার্সিং সায়েন্স এন্ড মিডওয়াইফারী ডিগ্রী চাপিয়ে দিচ্ছেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.