নার্সের উপর হামলা ঘটনায় বিএনএ চমেকহা শাখার প্রতিবাদ ও বিবৃতি, নিরাপদ কর্মপরিবেশ দাবি

Spread the love

চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে গর্ভবতী নার্স কে মারধর এবং সহকর্মী ও ইন্টার্ন নার্সদের মারধরের ঘটনার সুষ্ঠ বিচার দাবিতে বিবৃতি দিয়েছে বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল শাখা।

বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন চমেকহার বিবৃতি

গতকাল ০৭/০৬/২২ ইং তারিখে বিকেল ৪টায় চমেক হাসপাতালের ২৬নং অর্থপেডিক্স ওয়ার্ডে কর্তব্যরত নার্সিং কর্মকর্তার উপর মেডিকের ছাত্র ও ইন্টার্ন নামধারী সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদের প্রেক্ষিতে হাসপাতাল পরিচালনা কমিটির সভাপতি জনাব মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল এম.পি, ডিজি, এডিজি, ডিজিএনএম ও সেবা-তত্ত্বাবধায়কের নির্দেশনায় একটি ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এই নেক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদে বাংলাদেশ নার্সেস এসোসেয়িশন ও সকল নার্সের পক্ষ থেকে ৩টি দাবী জানানো হয়।

 

দাবী সমূহ:
১। ছাত্র নামধারী সন্ত্রাসীদের ছাত্রত্ব বাতিল করতে হবে।

২। তাদের ইন্টার্নীশীপ চমেকহা হইতে বাতিল করতে হবে।

৩। নিরাপদ কর্মস্থলের ব্যবস্থা করতে হবে।

তদন্ত কমিটি আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তাদের প্রতিবেদন প্রকাশ পূর্বক প্রকৃত দোষিদের শাপ্তির আওতায় আনার আশ্বাস প্রদান করেন। বাংলাদেশ নার্সেস এসোসিয়েশন চমেকহার পক্ষ থেকে সকল নার্সদের উদ্দেশ্যে করে বলা হয়, করোনা মহামারী ও সীতাকুন্ড জাতীয় মহামারিতে নার্সরা তাদের কর্মের মাধ্যমে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনগণের কাছে যে সুনাম অর্জন করেছে কিন্তু এই নেক্কারজনক ঘটনার মাধ্যমে অন্য কোন স্বার্থন্বেসী মহল যেন সুফল না নিতে পারে এবং চলমান ঘটনা অন্যদিকে প্রবাহিত করতে না পারে সেজন্য সকলকে সতর্ক থাকার জন্য বিশেষ ভাবে অনুরোধ করা হয়। এ সময় প্রতিবাদরত সকল নার্স তাদের কর্মস্থলে ফিরে যান এবং রোগীর সেবায় নিয়োজিত করেন। আগামী ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত কমিটি ও চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতাল প্রশাসন যদি দোষীদের শাস্তির আওতায় না আনে তাহলে চট্টগ্রাম মেডিকেল হাসপাতালের সকল নার্স ও কেন্দ্রীয় নেত্রীবৃন্দ সহ বাংলাদেশের সকল নার্সিং কর্মকর্তাদের নিয়ে জোরদার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.