অধিনায়কত্ব ছেড়ে দিতে চান মুমিনুল

Spread the love

ব্যাটিংয়ে মনোযোগ বাড়াতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের টেস্ট অধিনায়কত্বে আর থাকছেন না মুমিনুল হক। সন্ধ্যায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপনের বাসায় দেখা করে এমন সিদ্ধান্তের কথা সংবাদ মাধ্যমকে জানান মুমিনুল।  এর আগে সন্ধ্যা ৬ টা ৪০ মিনিটের দিকে পাপনের গুলশানের বাসায় আসেন মুমিনুল হক।

বিজ্ঞাপনের জন্যে যোগাযোগ করুন ০১৮৬৭৯০২৯৬২
বিজ্ঞাপনঃ ভর্তির জন্যে যোগাযোগ ০১৮৬৭৯০২৯৬২

মঙ্গলবার নিজ বাসভবনে মুমিনুল হকের সঙ্গে বৈঠক করেন বিসিবি সভাপতি।

 

সেখানে সিদ্ধান্ত হয় দলের অধিনায়কত্ব নিয়ে। ঘণ্টাখানেক আলোচনা করে মুমিনুল নিজের সিদ্ধান্ত জানান সভাপতিকে।

 

আলোচনা শেষে মুমিনুল সংবাদমাধ্যমকে বলেন,আমার কোনো অভিমান বা দুঃখ নেই। নিজ থেকেই সিদ্ধান্ত নিয়েছি টেস্ট ক্যাপ্টেন্সি ছাড়ার। পরবর্তী টেস্ট ক্যাপ্টেন কে হবেন সেটা বোর্ডের সিদ্ধান্ত।

বাংলাদেশ ক্রিকেটে এখন অন্যতম আলোচিত ইস্যু টেস্ট অধিনায়কত্ব। মুমিনুল হকের নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন অনেকদিন ধরেই। শ্রীলঙ্কা সিরিজের পর সেটা আরও জোরালো হয়েছে। ব্যাটে হাতে টানা ব্যর্থ হচ্ছেন মুমিনুল, বলা হচ্ছে অধিনায়কত্বের চাপ নিতে পারছেন না তিনি।

এর আগে শ্রীলঙ্কা সিরিজের পর বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন জানিয়েছিলেন, মুমিনুলের সঙ্গে এক দফায় বসেছেন, আবার বসবেন। সেই বৈঠকই বসছে আজ। মুমিনুলের সঙ্গে থাকতে পারেন সাকিব আল হাসানও। তাদের সঙ্গে যে নেতৃত্ব নিয়েই আলাপ হবে, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। ২ জুন বোর্ড সভার আগে আজই ফয়সালা হতে পারে টেস্ট অধিনায়কত্বের।

মুমিনুলের কাছে ব্যাটিংয়ে মনোযোগী হবেন, নাকি নেতৃত্বও দেবেন- এই ব্যাপারে সিদ্ধান্ত জানতে চেয়েছে বোর্ড। দল ওয়েস্ট ইন্ডিজে উড়াল দেওয়ার আগেই এই সিদ্ধান্ত হবে।

সাকিব অধিনায়ক হলে নেতৃত্বে আসতে পারেন ফর্মে থাকা লিটন দাসও। অনেক দিন ধরেই বাংলাদেশের কোনো ফরম্যাটেই সহ-অধিনায়ক নেই। তবে এবার লিটন পেতে পারেন আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব। এসব ব্যাপারেই সিদ্ধান্ত হবে আগামী ২ জুনের বোর্ড সভায়।

অধিনায়ক হিসেবে ১৭টি ম্যাচে মাঠে নেমেছেন মুমিনুল। এই ম্যাচগুলোতে করেছেন ৯১২ রান। তার ৫০ ছোঁয়া ব্যাটিং গড় নেমে এসেছে ৩১.৪৪ এ। মুমিনুলের নেতৃত্বে তিন ম্যাচে জিতেছে বাংলাদেশ, দুই ম্যাচ ড্র আর বাকি ১২ ম্যাচেই হেরেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.